পোকার আক্রমণের করণীয়ঃ
আক্রান্ত জমিতে বিলি কেটে আলো-বাতাস চলাচলের ব্যবস্থা করা
জমিতে পোকা বাড়ার সম্ভাবনা দেখা দিলে জমে থাকা পানি সরিয়ে ফেলা;
জমিতে হাঁস ছেড়ে দেয়া;
রাতে আলোর ফাঁদ ব্যবহার করা;
উর্বর জমিতে ইউরিয়া সারের উপরি প্রয়োগ বন্ধ করা ;
ক্ষেতে শতকরা ৫০ ভাগ গাছে অন্ততঃ একটি মাকড়সা থাকলে কীটনাশক প্রয়োগ না করা;
শতকরা ৫০ ভাগ ধান গাছে -৪টি ডিমওয়ালা স্ত্রী পোকা অথবা ১০টি বাচ্চা পোকা প্রতি গোছায় পাওয়া গেলে সঠিক কীটনাশক, সঠিক পদ্ধতিতে সঠিক সময়ে সঠিক মাত্রায় কীটনাশক প্রয়োগ করতে হবে

কীটনাশকের কতিপয় নমূনা অনুমোদিত মাত্রাঃ
আইসোপোকার্ব উইন্ড ৭৫ wp অথবা মিপসিন  ৭৫ wp @ . মিলি/লিটার পানি হারে মিশিয়ে গাছের গোড়ায় ভালভাবে স্প্রে করা যেতে পারে।
ইমিডাক্লোরোপিড প্রমিজ প্লাস ৭২ WP অথবা প্রমিজ ২০০ SL .২৫ মিলি/লি. পানি হারে মিশিয়ে গাছের গোড়ায় ভালভাবে স্প্রে করা যেতে পারে।
ক্লোরপাইরিফস মিলি/লি. পানি হারে মিশিয়ে গাছের গোড়ায় ভালভাবে স্প্রে করা যেতে পারে।
ডায়াজিনন প্লেনাম ৫০ ডাব্লিউজি @ . গ্রাম/১লিঃ পানি, অথবা  এ্যামকোজিনন ৬০ ইসি ৩. মিলি/লি. পানি হারে মিশিয়ে গাছের গোড়ায় ভালভাবে স্প্রে করা যেতে পারে।
থায়ামেথোক্সাম -মার্ভেল এক্স এল ২৫ wg .১২গ্রাম/ লিঃ পানি হারে মিশিয়ে গাছের গোড়ায় ভালভাবে স্প্রে করা যেতে পারে।
এ্যাসিটামিপ্রিড+কারটাপ ৯৫ এসপি ৫০ গ্রাম ১৬লিটার পানি হারে মিশিয়ে গাছের গোড়ায় ভালভাবেস্প্রে করা যেতে পারে।
এ্যারোমা জি আর;পানি হারে মিশিয়ে গাছের গোড়ায় ভালভাবে স্প্রে করা যেতে পারে।
কার্বোসালফান এ্যামকোসাল ২০ ইসি ১৩৩ মিলি/বিঘা হারে মিশিয়ে গাছের গোড়ায় ভালভাবে স্প্রে করা যেতে পারে