চীনাবাদাম একটি অর্থকারী ফসল এটি একটি উৎকৃষ্ট ভোজ্য তেলবীজ বীজে ৪৮-৫০% তেল ২২-২৯% আমিষ রয়েছে বাংলাদেশে প্রায় ৮০ হাজার হেক্টর জমিতে চীনাবাদাম চাষ করা হয়


 


চীনাবাদামের মোট উৎপাদন প্রায় লক্ষ ২৫ হাজার মেট্রিক টন উচ্চ ফলনশীল জাতের ব্যবহার উন্নত পদ্ধতিতে চাষাবাদের মাধ্যমে বাংলাদেশে চীনাবাদামের উৎপদন বাড়ানো সম্ভব


জলবায়ু ও মাটি


উষ্ণ ও অবউষ্ণ মন্ডলের আবহাওয়ায় চীনা বাদামের বৃদ্ধি ভাল হয়হালকা বেলে দোঁআশ মাটি চীনা বাদাম চাষের জন্য সবচেয়ে উপযোগী


চীনাবাদামের জাত


বাংলাদেশের জাতগুলোর মধ্যে মাইজচর, বাসন্তী, ঝিংগা, ত্রিদানা, বিনা চীনাবাদাম-১, বারি চীনা বাদাম-৫ ও ৬ উল্লেখযোগ্যনিন্মে এ জাতগুলোর বিবরণ দেয়া হলো
মাইজচর বাদাম (ঢাকা-১)


প্রতি বাদামে ১-২ টি বীজ থাকে, বীজের রং লালচে বাদামীবীজে তেলের পরিমাণ ৪৮%রবি ও খরিফ উভয় মৌসুমে চাষ যোগ্য   
ফলনঃ রবি মৌসুমে প্রতি হেক্টরে ১.৮-২.০ টন এবং খরিফ মৌসুমে ১.৬-১.৮ টন
বাসন্তী বাদাম (ডিজি-২)


প্রতি বাদামে ১-২ টি বীজ থাকেবীজের আকার মধ্য লম্বাকৃতি এবং রং লালচে বাদামী বীজে তেলের পরিমাণ ৪৮%রবি ও খরিফ উভয় মৌসুমে এ জাতটি চাষ করা যায়
ফলনঃ রবি মৌসুমে প্রতি হেক্টরে ২.০-২.২ টন এবং খরিফ মৌসুমে প্রতি হেক্টরে ১.৮-২.০ টন
ঝিংগা বাদাম (এসিসি-১২)


প্রতি বাদামে ৩-৪ টি বীজ থাকেবীজের উপরের খোসা বাদামী রঙের হয়বীজের তেলের পরিমাণ ৪৯-৫০%জাতটি বেশ খরা সহনশীল
ফলনঃ  হেক্টর প্রতি প্রায় ২.৪-২.৬ টন।  
ত্রিদানা বাদাম (ডিএম-১)


বীজের উপরের খোসা গাঢ় লাল এবং প্রতি বাদামে ৩-৪ টি বীজ থাকেবীজে তেলের পরিমাণ ৪৯-৫০%জাতটি খরিপ মৌসুমে চাষ করা উত্তমএ জাতটির বীজের সুপ্তি কাল নেই।  
ফলনঃ হেক্টর প্রতি প্রায় ২.২-২.৪ টন
বিনা চীনা বাদাম-১


বীজের খোসা লালবীজে তেলের পরিমাণ ৪৭%জাতটি টিক্কা ও মরিচা রোগ সহনশীল
ফলনঃ রবিতে হেক্টর প্রতি প্রায় ২.৫-২.৭ টন এবং খরিফে ২.৫-২.৩ টন
বারি চীনাবাদাম-৫


প্রতি বাদামে বীজের সংখ্যা ১-২ টি  বাদামের শিরা উপশিরা খুব স্পষ্ট, বীজের আকার বড়বীজের সুপ্তিকাল ১০-১৫ দিনবীজে তেলের পরিমাণ ২৫-২৭%রবি ও খরিফ উভয় মৌসুমে চাষ যোগ্য   
ফলনঃ হেক্টরপ্রতি রবি মৌসুমে ২.৭০-৩.১০ টন এবং খরিফ মৌসুমে ২.০-২.৫ টন

r