ব্রকলি চাষ করে সফল হয়েছেন চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার কৃষক খাইরুল ইসলাম। ব্রকলি অত্যন্ত লাভজনক আবাদি সবজি। ১ বিঘা জমিতে ব্রকলি চাহশ করতে খরচ হয় প্রায় ১৫ হাজার টাকা। ২ মাস পরে এই বিঘা জমির ব্রকলি বিক্রি করে আয় হবে কমপক্ষে ৮০-৮৫ হাজার টাকা। ক্যান্সার প্রতিরোধি অন্যতম এই সবজি উন্নত বিশ্বে ব্যাপক জনপ্রিয় হলেও আমাদের দেশে অপ্রচলিত সবজির তালিকায় রয়েছে। অত্যন্ত লাভজনক এই আবাদ ধিরে হলেও সম্প্রসারিত হচ্ছে... সাধারণ জনগনও ইন্টারনেটের কল্যানে এর পুষ্টিগুণ সম্পর্কে জেনে আগ্রহী হচ্ছে। ব্রকলি একটি প্রাকৃতিক ডেটক্স, যা পেট এবং পাচনতন্ত্র পরিষ্কার রাখে। ব্রকলিতে প্রচুর পরিমানে ফ্ল্যাভোনয়েড, লিউটেনের সঙ্গে ক্যারটিনয়েড, বিটা-ক্যারোটিন এবং জিক্সানথিন- সব শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে যা অনেক গুরুতর রোগ প্রতিরোধ করে। রক্তের শর্করা নিয়ন্ত্রণে রাখে এমন খাদ্যের মধ্যে ব্রকলি অন্যতম। ব্রকলি চিনির প্রভাব রোধ করে ও রক্তে শর্করার মাত্রা কম রাখে। ব্রকলিতে অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি এবং অ্যান্টি-এলার্জির বৈশিষ্ট্য আছে। ব্রকলিতে থাকা গ্লুকোরাফানিন বৈশিষ্ট্য ক্ষতিগ্রস্ত ত্বকের টিস্যু মেরামত করে এবং ত্বক উন্নত করে। ব্রকলি পটাসিয়াম এবং ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ, যা একটি সুস্থ স্নায়ুতন্ত্রের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই বেশি বেশি ব্রকলি খাওয়ার অভ্যাস করুন, ক্যান্সারের আশংকা থেকে মুক্ত থাকুন। কৃষিই সমৃদ্ধি।