দেশব্যাপি ফ্রেশ কাট সবজি ও ফল প্রক্রিয়াজাতকরণে জোর দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন ও উপকরণ) ড. মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম। তিনি বলেছেন, কর্মজীবিদের কাছে ফ্রেশকাট সবজি ও ফল দিনে দিনে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। দেশব্যাপি ফ্রেশ কাট সবজি ও ফল প্রক্রিয়াজাতকরণে আরো বেশি জোর দিতে হবে। আজ সোমবার (২৯ এপ্রিল ২০১৯) রাজধানীর খামারবাড়ির কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের সভাকক্ষে ‘ফ্রেশকাট শাকসবজি ও ফলমূল প্রক্রিয়াজাতকরণ ও বিপণন কার্যক্রম সম্প্রসারণ কর্মসূচি’জাতীয় সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ড. মোছাম্মৎ নাজমানারা খানুম বলেন, আমাদের উৎপাদনে ঘাটতি থাকা সত্বেও প্রচুর ফল ও সবজি নষ্ট হয়ে যায়। ফ্রেশকাট পদ্ধতির মাধ্যমে খাদ্যের অপচয় রোধ করা যাবে। পাশাপাশি আমাদের কৃষকরাও ন্যায্যমূল্য পাবে। তিনি ফ্রেশ কাট সবজি ও ফল প্রক্রিয়াজাতকরণে জোর দেয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, উন্নত বিশ্বে প্রায় শতভাগ লোক ফ্রেশকাট সবজি গ্রহন করে থাকে। আমাদের দেশে এখনো অনেকে অভ্যস্ত হয়ে উঠেনি। তবে সুপার চেইন শপগুলোতে ক্রেতার সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। আরও পড়ুন: সমুদ্রের সম্পদ আহরণে সরকারের সাথে শিল্পমালিকদের এগিয়ে আসার আহ্বান কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ইউসুফের সভাপতিত্বে আয়োজিত সেমিনারে ‘বাংলাদেশে ফ্রেশকাট শাকসবজি ও ফলমূল প্রক্রিয়াজাতকরণ ও বিপনন সম্ভাবনা’ বিষয়ে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের উপপরিচালক (বাজার সংযোগ) দেওয়ান আসরাফুল হোসেন। স্বাগত বক্তব্য দেন কর্মসূচি পরিচালক তৌহিদ মো. রাশেদ খান। সেমিনারে কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, কৃষি মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন দপ্তর/সংস্থার প্রতিনিধি, ব্যবসায়ী ও কৃষক প্রতিনিধিসহ প্রায় ১০০ জন অংশগ্রহন করে।