বোর্দো মিক্সার এমন একটি মিশ্রণ দ্রবণ যাহা বাড়িতে চুন ও তুতে দিয়ে তৈরি করা যায় এবং ছত্রাক জনিত রোগ দমনে বাংলাদেশে বহিল ব্যবহৃত হয়। ইহা তুলনা মূলক ভাবে নিরাপদ এবং সহজলভ্য। 🔴ছত্রাক জনিত রোগঃ গোড়া পচাঁ,কুমড়ার চুনাপড়া,টমেটো আলুর ব্লাইট রোগ বোর্দোমিক্সার দ্বারা দমন করা যায় এটা তৈরী করা খুবই সহজ যেকেউ এটি তৈরী করে ব্যবহার করতে পারবে । 🔴১% বোর্দো মিকচার তৈরিঃ 🔴যা লাগবেঃ ১। তুতে বা কপার সালফেট ১ কেজি ২। চুন ১কেজি ৩। পানি ১০০ লিটার ৪।৩ টি বড় পাত্র। ৫। দুটি বাস বা কাঠের কাঠি ৬।স্প্রেয়ার ৭।একটি ইস্পাতের চাকু। 🔴প্রস্তুত প্রণালীঃ ১। তুঁতে ও চুন আলাদাভাবে মিহিকরে গুড়া করে নিতে হবে। ২। ছোট মাটির পাত্র ২টিতে ৫ লিটার করে পানি নিতে হবে। ৩। একটি মাটির পাত্রে ১০০ গ্রাম মিহি করা তুঁতে ও অন্য পাত্রে ১০০ গ্রাম মিহি করা চুন ঢেলে দিতে হবে। ৪। বাঁশের কাঠি দিয়ে দুই পাত্রের তুঁতে ও চুন ভালভাবে ঘুটে নিতে হবে। এরপর ৮-১০ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন। ৫। এরপর দু পাত্রের মিছ্রিত দ্রবণ বড় মাটির পাত্রে ঢালুন। ভাল ভাবে ঘুটে নিন। এটাই হল বোর্দো মিক্সার। ৬। বোর্দো মিক্সার টি সঠিক মাত্রায় হয়েছে কিনা তা রং দেখে বোঝাযায়। মিশ্রিত দ্রবনের রং গাড় নীল হলে বুঝতে হবে সঠিক হয়েছে। দ্রবণ সবুজ বা সাদা হলে যথাক্রমে তুঁতে ও চুন বেশি হয়েছে। পানি দিয়ে মাত্রা ঠিক করে নিন। ৭। এবার স্প্রে করার জন্য একদম তৈরি। 🔴মনে রাখা দরকারঃ— ১। তুঁতে ও চুন ভালভাবে মিহি হল কিনা দেখতে হবে। ২। দ্রবণ প্রস্তুত করার ২-৩ ঘণ্টার মধ্য স্পে করা দরকার। ৩। প্রস্তুত করা মিক্সার ইস্পাতের চাকুর অগ্রভাগ ডুবিয়ে দেখে নিন লালচে দাগ পড়ে কিনা। না পড়লে মিশ্রণ মাত্রা সঠিক হয়েছে। 🔴সতর্কতাঃ *বোর্দো মিক্সার প্রয়োগে কোন কোন ফসলে ( বিশেষ করে টমেটো) বিষক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে। *এহা ফল পাকাতে বিলম্ব করে। *তৈরির পর ১২ ঘন্টার বেশী রাখা যাবে না। * এটা একটি বিষ,তৈরির পর হাত ভাল ভাবে ধুতে হবে। 🔴সুবিধাঃ * বোর্দো মিক্সার কয়েক দিন পর্যন্ত গাছে লেগে থাকে * এটা তৈরির উপকরণ সহজে পাওয়া যায় ওদামে সস্তা * ছত্রাক জনিত রোগ দমনে বেশ কার্যকর
r